এইমাত্র
  • বাসা ভাড়া বাঁচাতে বিমানে যাতায়াত বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের
  • ১ মার্চ থেকে বাড়ছে বিদ্যুতের দাম: প্রতিমন্ত্রী
  • দুই শিশু সন্তানসহ ভাগ্নিকে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড
  • ঢাকা ত্যাগ করলেন পিটার হাস
  • ৯৮৯ কোটি রুপি ব্যয়ে দীর্ঘতম ক্যাবল সেতুর উদ্ধোধন নরেন্দ্র মোদির
  • বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি সংরক্ষিত আসনে ৫০ নারী
  • বাংলাদেশ ও ভারতের বিচার বিভাগ প্রায় একই: ভারতের প্রধান বিচারপতি
  • রমজান জুড়ে মাঠে থাকবে ভোক্তা অধিকার: মহাপরিচালক
  • দেশে আজ মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ভূলুণ্ঠিত, বিবৃতিতে ফখরুল
  • মিথ্যা তথ্য ও গুজব ঠেকাতে নতুন আইন আসছে: আইনমন্ত্রী
  • আজ রবিবার, ১২ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
    বিনোদন

    আমার স্বামী দেশে আসলে তার সঙ্গে কী হবে?, আমি শঙ্কিত: মাহি

    বিনোদন ডেস্ক প্রকাশ: ১৮ মার্চ ২০২৩, ১০:০১ পিএম
    বিনোদন ডেস্ক প্রকাশ: ১৮ মার্চ ২০২৩, ১০:০১ পিএম

    আমার স্বামী দেশে আসলে তার সঙ্গে কী হবে?, আমি শঙ্কিত: মাহি

    বিনোদন ডেস্ক প্রকাশ: ১৮ মার্চ ২০২৩, ১০:০১ পিএম


    ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পুলিশের করা মামলায় গ্রেফতার চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। শনিবার (১৮ মার্চ) সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটের দিকে কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে বেরিয়ে আসেন তিনি।

    এরপর রাত সাড়ে ৮টার দিকে সনি রাজ কার প্যালেসের সামনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মাহিয়া মাহি। এসময় তিনি বলেন, ‘কীভাবে আমার অনুভূতি প্রকাশ করব বুঝতেছি না। আমি আবেগে আপ্লুত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা নেই আমার।’

    তিনি আরও বলেন, ‘সিনেমায় অনেক শুটিং করেছি। আমি দেখেছি, কারাগারে মানুষ অনেক কষ্টে থাকে। কিন্তু আমি কারাগারের ভেতরে অনেক শান্তিতে ছিলাম।’

    নায়িকা জানান, ‘বিমান থেকে নামার পর ইমিগ্রেশনের পুলিশ আমাকে কারও সঙ্গে কথা বলতে দেননি। পুরো এয়ারপোর্ট ফাঁকা হয়ে গেছে। আমার মামা কথা বলতে এসেছিলেন, তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। আমি কি এত বড় আসামি হয়ে গেছি? এত বড় আসামি তো ছিলাম না।’

    মাহির ভাষ্য, ‘আমি লাইভ করেছি, একজনের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। সে ডিজিটাল আইনে মামলা করেছে, আমি সেই মামলার আসামি। কিন্তু আমি তো কোনো রাষ্ট্রদ্রোহী না। আমি অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেছি।’

    তিনি যোগ করেন, ‘আমি মাহিয়া মাহি, একটা পরিচিত মুখ হওয়া সত্ত্বেও আমাকে যে মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে, এতে আমি ভীত সন্ত্রস্ত। এয়ারপোর্ট থেকে আমাকে যে গাড়িতে গাজীপুর নেওয়া হয়েছে, সে গাড়িতে প্রচন্ড গরম ছিলো। আমি একটা ঠাণ্ডা পানির বোতল চেয়েছিলাম, সেটা কিনে দিতে তারা এক ঘণ্টা সময় নেন।’

    স্বামীর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে মাহি বলেন, ‘আমার স্বামীও একই মামলার আসামি। আমি ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়া সত্ত্বেও যে মানবিকতা পাইনি, তাহলে আমার স্বামী দেশে আসলে তার সঙ্গে কী হবে? আমি আমার স্বামীর নিরাপত্তা নিয়ে খুবই শঙ্কিত।’

    আরআই

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…