এইমাত্র
  • ১ মার্চ থেকে বাড়ছে বিদ্যুতের দাম: প্রতিমন্ত্রী
  • দুই শিশু সন্তানসহ ভাগ্নিকে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড
  • ঢাকা ত্যাগ করলেন পিটার হাস
  • ৯৮৯ কোটি রুপি ব্যয়ে দীর্ঘতম ক্যাবল সেতুর উদ্ধোধন নরেন্দ্র মোদির
  • বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি সংরক্ষিত আসনে ৫০ নারী
  • বাংলাদেশ ও ভারতের বিচার বিভাগ প্রায় একই: ভারতের প্রধান বিচারপতি
  • রমজান জুড়ে মাঠে থাকবে ভোক্তা অধিকার: মহাপরিচালক
  • দেশে আজ মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ভূলুণ্ঠিত, বিবৃতিতে ফখরুল
  • মিথ্যা তথ্য ও গুজব ঠেকাতে নতুন আইন আসছে: আইনমন্ত্রী
  • জনগণকে ক্রীতদাস বানানোর চক্রান্ত চলছে: রিজভী
  • আজ রবিবার, ১২ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    কৃষক হত্যা খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে আদালত প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ

    সাইফুল ইসলাম মুকুল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৭ পিএম
    সাইফুল ইসলাম মুকুল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৭ পিএম

    কৃষক হত্যা খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে আদালত প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ

    সাইফুল ইসলাম মুকুল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৭ পিএম

    দফায় দফায় পুলিশী বাঁধা উপেক্ষা করে রংপুরের পীরগাছার পশ্চিম ব্রাক্ষ্মনী কুন্ডা গ্রামে শেরআলী নামে এক কৃষককে জবাই করে হত্যার ঘটনায় খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে সোমবার (২০ মার্চ) দুপুরে রংপুরের আদালত চত্বরে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসি।

    বিক্ষোভ মিছিলে নারী পুরুষ শিশুসহ দুই শতাধিক স্বজন ও এলাকাবাসি অংশ নেয়।

    সেখানে অনুষ্ঠিত সমাবেশে হত্যাকান্ডের জন্য রংপুর আইনজিবী সমিতিরসহ সভাপতি জহুরুল ইসলাম এ্যাডভোকেটকে দায়ি করে তার নেতৃত্বেই শের আলীকে হত্যা করার অভিযোগ করে তাকেসহ খুনিদের গ্রেফতার করার দাবি জানানো হয়।

    সমাবেশে বক্তব্য দেন নিহত শের আলীর ভাই শাহার আলী, আনসার আলী সহ অন্যান্যরা। তারা আরো অভিযোগ করে গত শনিবার শের আলীর লাশ তার বাড়ির অদুরে একটি কলার বাগান থেকে জবাই করা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। যেহেতু জমি জমা নিয়ে জহুরুল ইসলামসহ তার পরিবারের সাথে বিরোধ ও মামলা চলে আসছিলো সেই কারণে শের আলীকে প্রিপ্লান করে তার নেতৃত্বেই নৃশংস ভাবে জবাই করে হত্যা করা হয়।

    এ ঘটনায় পীরগাছা থানায় জহুরুল ইসলাম এ্যাডভোকেটকে প্রধান আসামি করে কয়েক জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করার পরেও খুনিদের কাউকেই গ্রেফতার করছেনা পুলিশ। বরং প্রধান আসামিসহ খুনিরা প্রকাশ্যই ঘুরে বেড়ালেও রহস্যজনক কারনে তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছেনা বলে তারা অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন স্বজন ও এলাকাবাসি।

    এর আগে সোমবার দুপুর ১টার দিকে রংপুর থেকে ৩০ কিলোমিটার দুরের পথ পীরগাছা থেকে দুই শতাধিক নারী পুরুষ আদালত চত্বরের বাইরে সমবেত হয়ে ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে আদালত চত্বরে প্রবেশ করে জহুরুল ইসলাম এ্যাডভোকেটের নাম উল্লেখ করে তাকে গ্রেফতারের দাবি করে শ্লোগান দিতে দিতে আদালত চত্বরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করতে থাকে।

    খবর পেয়ে পুলিশ এসে মিছিলকারীদের নিবৃত করার চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ অনেকটা জোর করে মিছিলকারীদেরে আদালত চত্বর ত্যাগ করাতে বাধ্য করে বলে মিছিলকারীরা অভিযোগ করে।

    এব্যাপারে পীরগাছা থানার ওসি মাসুমুর রহমানের সাথে অন্তত ১০ বার তার সরকারি মোবাইল ফোনে ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। বরং তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। কেন ফোন বন্ধ রেখেছেন এর কোন ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি। একই ভাবে ওসি তদন্ত সেলিমুর রহমান এবং বিট অফিসার এস আই সাইমুল ইসলামের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

    পরে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে অভিযুক্ত জহুরুল ইসলাম এ্যাডভোকেটের সাথে তার ব্যাক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করে নিজেই স্বীকার করেন তাকে অন্যায় ভাবে মিথ্যা মামলা করে তাকে প্রধান আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি দাবি করেন ঘটনা স্থল পশ্চিম ব্রাক্ষ্মনী কুন্ডা গ্রামে ১৯৭২ সালের পরে তিনি আর থাকেননা।

    ১৯৯১ সাল থেকে পীরগাছা উপজেলা সদরে তিনি বসবাস করেন। তবে ঘটনাস্থল ওই গ্রামে তার ১০ একর জমির উপর একটি খামার আছে পুরোটাই তারকাটা দিয়ে ঘেরা। সেখানে অনেক আইনজিবীও নিমন্ত্রন খেতে গিয়েছিলো।

    এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান নিহত শের আলীসহ পরিবারের সাথে তাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ আছে মামলাও আছে। তারা বেশ কয়েকদফা জেলও খেটেছে। মামলাটি শেষ পর্যায় রয়েছে।

    তিনি দাবি করেন কিছু জমি তারা এলাকার একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসীর কাছে বিক্রি করেছে সেই ব্যাক্তি এ ঘটনা ঘটাতে পারেন। তবে নিজেকে সম্পুর্ন নির্দ্দোশ দাবি করেন তিনি। তাকে মিথ্যা ভাবে মামলায় জড়িত করা হয়েছে।

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…