এইমাত্র
  • আজ দে‌শের স‌র্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়
  • বাংলাদেশি পর্যটকদের ৩ দিন ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা
  • চার বিভাগে হিট অ্যালার্ট জারি আবহাওয়া অফিসের
  • খারকিভে চলছে ‘কঠিন লড়াই’: জেলেনস্কি
  • সবুজবাগে নির্মাণাধীন ভবনের মাচা ভেঙে নিহত ৩ শ্রমিক
  • আবারো চুয়াডাঙ্গায় তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই
  • চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত
  • সিরাজগঞ্জে কভার্ডভ্যানে মিলল ২১৬ কেজি গাঁজা, গ্রেপ্তার ২
  • টাঙ্গাইলের ১৬ সরকারি অফিসে ওড়ে না জাতীয় পতাকা
  • ১০ হাজারের বেশি বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাবে যুক্তরাজ্য
  • আজ শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ১৮ মে, ২০২৪
    তথ্য-প্রযুক্তি

    দেশ-বিদেশে প্রোডাক্ট ডিজাইনে নতুন মাত্রা দিচ্ছেন আতিকুর রহমান

    তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক প্রকাশ: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:২৭ এএম
    তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক প্রকাশ: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:২৭ এএম

    দেশ-বিদেশে প্রোডাক্ট ডিজাইনে নতুন মাত্রা দিচ্ছেন আতিকুর রহমান

    তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক প্রকাশ: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:২৭ এএম

    আতিকুর রহমান বাংলাদেশের জনপ্রিয় প্রোডাক্ট ডিজাইনার। তিনি দীর্ঘ ৭ বছরের বেশি সময় কাজ করেছেন ১৭টি দেশের ২০টি ইন্ডাস্ট্রির ৪০টিরও বেশি প্রোডাক্ট নিয়ে। দেশ এবং দেশের বাইরে প্রোডাক্ট ডিজাইনকে প্রতিনিয়ত দিয়ে যাচ্ছেন নতুন মাত্রা। বর্তমানে ইউজার এক্সপেরিয়েন্স লিড হিসেবে রিমোট জব করছেন ইউরোপের আমস্টারডাম ভিত্তিক ওটার কোম্পানিতে। সেখানে তিনি কোম্পানির প্রোডাক্টের ইউজার এক্সপেরিয়েন্স উন্নত করার জন্য কাজ করে থাকেন।

    আতিকুর রহমান সময়ের কন্ঠস্বরকে বলেন, ‘মূলত ডিজাইন টিমকে লিড করে ইউজারের জন্য ভালো একটি এক্সপেরিয়েন্স নিশ্চিত করা, বিজনেসকে প্রফিটেবল করা, পাশাপাশি প্রোডাক্ট টিমের কর্মদক্ষতা বাড়ানোই আমার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। আমাদের দেশে প্রোডাক্ট ডিজাইন নিয়ে মানসম্মত কোর্স নেই বললেই চলে। অনেকেই ভুলভাল জায়গায় কোর্স করে নিজের সর্বস্ব হারাচ্ছেন। সেভাবে বুঝেই উঠতে পারছেন না প্রোডাক্ট ডিজাইন আসলে কী? আমার প্রচেষ্টা আসলে সবাইকে এ ব্যাপারে জানানো এবং শেখানো।’

    তিনি বলেন, ‘এরই মধ্যে প্রায় ১০ হাজার মানুষ যুক্ত আছেন আমার সঙ্গে। পাশাপাশি ডিজাইন মংকস নামে আমার একটি ডিজাইন এজেন্সি আছে। যেখানে লোকাল এবং গ্লোব্যাল প্রোডাক্ট নিয়ে আমরা কাজ করি। ডিজাইন মংকসে আমরা ১০ জন ডিজাইনার নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশে বসে গ্লোব্যাল স্ট্যান্ডার্ডের ডিজাইন সার্ভিস প্রোভাইড করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। পুরো টিমই একটি রিমোট টিম। আমার ইচ্ছা ছিলো, স্টেরিওটিপিক্যাল কনসেপ্ট ভেঙে একটি নতুন কালচার নিয়ে সবাই একটি ভালো পরিবেশে কাজ করতে পারবে।’

    শুরুর গল্প জানতে চাইলে আতিক বলেন, ‘শুরু আসলে ইউনিভার্সিটি থেকে। আমি আর আমার কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়া বন্ধু মিলে একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ বানাই ব্ল্যাড ডোনেশনের জন্য। আমি তখন ডিজাইন নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করতাম। যখন এ অ্যাপের জন্য ডিজাইন করা শুরু করি; তখন অন্যরকম ভালো লাগা কাজ করে। এ জায়গা থেকেই পরে প্রোডাক্ট ডিজাইন নিয়ে কাজ করা। এরপর ভার্সিটির পাঠ চুকিয়ে ঢাকায় আসি। বন্ধুরা মিলে একটি স্টার্টআপ দিই। দুর্ভাগ্যবশত সেটি ফেইল করে। এরপর ডিসিশন নিই প্রোডাক্ট ডিজাইন নিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করবো। এভাবে শুরু হয় আমার জার্নি। তবে সফলতা পেতে লেগে যায় বেশ সময়।

    আতিকুর রহমানের কাজ শুধু তার চাকরিতেই সীমাবদ্ধ নেই। ডিজাইন কমিউনিটিকে প্রোডাক্ট ডিজাইন নিয়ে শেখানোর জন্য তার একটি উদ্যোগ হলো ‘ইউএক্স টকস উইথ আতিক’। ডিজাইনারদের জন্য ইউটিউব এবং পডকাস্টের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত শেয়ার করে চলেছেন ক্যারিয়ার পরামর্শ, ডিজাইন টিপস এবং ডিজাইন লার্নিং। তার স্বপ্ন ডিজাইন মংকসকে একটি ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সিতে পরিণত করা। পাশাপাশি ‘ইউএক্স টকস উইথ আতিক’র মাধ্যমে একটি সুন্দর নলেজ শেয়ারিং কমিউনিটি গড়ে তোলা। যেখানে প্রোডাক্ট ডিজাইন নিয়ে নিত্য নতুন টিপস সবার মাঝে শেয়ার করতে চান।

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…