এইমাত্র
  • 'তুমি কে আমি কে- রাজাকার রাজাকার' স্লোগানে উত্তাল ঢাবি
  • ট্রাম্পকে গুলি করা কে এই টমাস ম্যাথিউ
  • ২০২৫ সালের ১ জুলাই থেকে প্রত্যয় স্কিম বাধ্যতামূলক
  • ইমরান খান ও তার স্ত্রীর ৮ দিনের রিমান্ড
  • খাদ্যের পাশাপাশি ত্রাণ হিসেবে বস্ত্র দরকার বানভাসিদের
  • রূপালী ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের দায়ে তিন কর্মকর্তাসহ ৬ জনের কারাদণ্ড
  • গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা
  • দিনাজপুরে নদীতে নিখোঁজ দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার
  • আমার পিয়ন ছিল, সেও ৪০০ কোটি টাকার মালিক: প্রধানমন্ত্রী
  • হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • আজ রবিবার, ৩০ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৪ জুলাই, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বৈদ্যুতিক বোর্ডগুলো এখন মরণ ফাঁদ!

    জাহিদ হোসাইন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি প্রকাশ: ১ অক্টোবর ২০২৩, ০৮:৩৫ পিএম
    জাহিদ হোসাইন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি প্রকাশ: ১ অক্টোবর ২০২৩, ০৮:৩৫ পিএম

    সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বৈদ্যুতিক বোর্ডগুলো এখন মরণ ফাঁদ!

    জাহিদ হোসাইন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি প্রকাশ: ১ অক্টোবর ২০২৩, ০৮:৩৫ পিএম

    সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডের বৈদ্যুতিক বোর্ডগুলো এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। একটু অসাবধান হলেই যেকোন সময় ঘটতে পারে মারাত্মক দূর্ঘটনা। এমনকি বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যেকোন সময় যে কেউ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারেন।

    সরেজমিনে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য দেয়ালে যে বোর্ড বসানো হয়েছে তার কোন ঢাকনা নেই। বিশেষ করে গাইনি ওয়ার্ডের অপারেশন থিয়েটারের পাশের দেয়ালে যে বোর্ডটি আছে সেটি খুব ঝুঁকিপূর্ণ। অসাবধানতাবশত কারো হাত যদি ওই বোর্ডে ঢুকে যায় তবে সাথে সাথেই তিনি বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারা যেতে পারেন।

    গাইনি ওয়ার্ডে রোগী দেখতে আসা ফাতেমা খাতুন বলেন, আমি দেয়ালে হেলান দিয়ে দাাঁড়ানোর সাথে সাথে পাশ থেকে একজন আমাকে হেলান দিতে নিষেধ করলেন। আমি ঘুরেই দেখলাম বোর্ডের ভিতরে বিদ্যুত এর তার। অসাবধানতাবশত বোর্ডের ভেতরে যদি আমার হাত চলে যেত তবে নিশ্চিত আমি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যেতাম।

    নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন স্বেচ্ছাসেবক বলেন, গাইনি ওয়ার্ডের অপারেশন থিয়েটারের সামনের এই বোর্ডের ঢাকনা দীর্ঘদিন যাবত নেই। আমরা অনেক ঝুঁকি নিয়ে এখানে কাজ করি। এছাড়া অনেক রোগীর স্বজনরা এখানে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করেন। এই বোর্ডটির ঢাকনা না লাগালে যে কোন সময় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

    তিনি আরো বলেন, গাইনি ওয়ার্ডে ছাড়াও হাসপাতালের অনেক জায়গার বিদ্যুৎ এর এই বোর্ডের ঢাকনা নেই। এগুলো যাদের দেখার কথা তারা দেখেননা। তারা হাসপাতালে আসেন আর ডিউটির সময় শেষ হলেই চলে যান।

    সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. শিতল চৌধুরী বলেন, বিষয়টি আমাকে কেউ জানাননি। খোঁজ নিয়ে দ্রুত বিষয়টির সমাধান করা হবে।

    পিএম

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…