এইমাত্র
  • বেনজীরের রিসোর্টের আয় যাবে সরকারি কোষাগারে
  • শিমুল-তানভীর-শিলাস্তির পর দায় স্বীকার বাবুর
  • ঝাল বেশি হওয়ায় কোরিয়ান নুডুলস বিক্রি বন্ধ করলো ডেনমার্ক
  • ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর নামে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণার ফাঁদ
  • মাহমুদউল্লাহর অবসর নিয়ে যা বললেন সাকিব
  • তানজিদ তামিমের বুদ্ধির প্রশংসায় আইসিসি
  • যেকোনো সময় সরকারের পতন ঘটতে পারে: দুদু
  • সড়কে যানজটের কথা অস্বীকার করলেন ওবায়দুল কাদের
  • নীরবে চলে গেলেন সোনালি দিনের চিত্রনায়িকা সুনেত্রা
  • বেতন-ভাতার দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ
  • আজ শনিবার, ১ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৫ জুন, ২০২৪
    লাইফস্টাইল

    গরমে সর্দি-কাশি হলে ঘরোয়া সমাধান

    লাইফস্টাইল ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৭:০৫ এএম
    লাইফস্টাইল ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৭:০৫ এএম

    গরমে সর্দি-কাশি হলে ঘরোয়া সমাধান

    লাইফস্টাইল ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৭:০৫ এএম

    প্রচণ্ড গরমের সঙ্গে সঙ্গে নানা ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে। এর মধ্যে ডিহাইড্রেশন, ঘাম বসে সর্দি-কাশি, দুর্বলতা, হজমের সমস্যা, হিট স্ট্রোক অন্যতম। অতিরিক্ত ঘামের কারণে শরীরে সোডিয়াম এবং পটাশিয়ামের ভারাসাম্যেও সমস্যা দেখা দিচ্ছে। অনেকেই এসব সমস্যা দূর করতে নানা ধরনের ওষুধ খাচ্ছেন। তবুও সমস্যা থেকে মুক্তি মিলছে না। সেক্ষেত্রে ঘরোয়া কিছু প্রতিকার অনুসরণ করতে পারেন।

    হলুদের ব্যবহার: ঘরোয়া প্রতিকার হিসেবে হলুদ খুবই জনপ্রিয়। গ্রীষ্মকালীন ফ্লু নিরাময়ের ক্ষেত্রে বাড়িতে হলুদ ব্যবহার করতে পারেন। এতে থাকা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান ভাইরাল সংক্রমণ এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। এটি গলা ব্যথা এবং নাকের প্রদাহ নিরাময়েও সাহায্য করে।

    কীভাবে বানাবেন: এক গ্লাস হালকা গরম দুধে ১ চা চামচ হলুদ গুঁড়া এবং সামান্য কালো মরিচ যোগ করুন। এটি প্রতিদিন দুবার পান করুন। এছাড়াও, আপনি এক গ্লাস গরম পানিতে পরিমাণমত হলুদ গুঁড়া, পরিমাণমত লবণ ভালোভাবে মেশান। এই মিশ্রণটি প্রতিদিন দুবার করে পান করলে, গলা ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন।

    মধুর ব্যবহার: শুধু গ্রীষ্ম নয়, সব মৌসুমেই ফ্লুর আরেকটি কার্যকরী ঘরোয়া চিকিৎসা মধু। এতে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্যসহ একাধিক উপাদান রয়েছে, যা গ্রীষ্মের ফ্লু সৃষ্টিকারী ভাইরাসকে মেরে ফেলে। এর ফলে গলা ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

    কীভাবে বানাবেন : ২ চা চামচ কাঁচা মধুর সঙ্গে ১ চা চামচ লেবুর রস বা আদার রস মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি দিনে ২ থেকে ৩ বার পান করুন। এছাড়াও এমনিত এক চামচ মধু খেতে পারে। কাশি নিরাময়ে প্রতিদিন ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১ চা চামচ মধু খান। সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

    আপেল সিডার ভিনেগারের ব্যবহার: আপেল সিডার ভিনেগার গ্রীষ্মের ঠান্ডার জন্য দায়ী ভাইরাসকে মেরে ফেলতে সাহায্য করে। এটি নাক বন্ধ থেকে দ্রুত মুক্তি দেয়। এছাড়াও, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

    কীভাবে বানাবেন: ১ কাপ গরম পানিতে ১ চা চামচ লবণ এবং ১ টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এটি দিয়ে দিনে কয়েকবার কুলকুচি করুন। এছাড়াও, এক গ্লাস পানিতে ১ চা চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে নিতে পারেন। এতে সামান্য মধু যোগ করুন। মিশ্রণটি দিনে দুবার পান করুন। এতেও স্বস্তি পাবেন। অতিরিক্ত

    আদা চা: আদায় থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিভাইরাল বৈশিষ্ট্য শ্বাসনালীতে জমে থাকা অত্যধিক শ্লেষ্মা কমাতে সাহায্য করে। আদা শরীরকে উষ্ণ রাখে, যা নিরাময় প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। বেশ কয়েকটি গবেষণা অনুসারে, আদা থাকা অ্যান্টিভাইরাল বৈশিষ্ট্য যেকোন ধরনের সংক্রমণ কমায়।

    কীভাবে বানাবেন : এক কাপ গরম পানিতে আদা কুচি মিশিয়ে ভালোভাভে ফুটিয়ে নিন। এতে মধু মেশান। দিনে দুই-তিনবার এই চা পান করলে উপকার পাবেন।

    এমআর

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…