এইমাত্র
  • থানা থেকে দুই শিক্ষার্থীকে ছাড়িয়ে আনলেন ঢাবি শিক্ষকরা
  • লালমনিরহাটে কোটা সংস্কার আন্দোলনে সড়ক অবরোধ-বিক্ষোভ
  • ফেনীতে শিক্ষার্থীদের মিছিলে ছাত্রলীগের হামলা, পুলিশসহ আহত ২০
  • ঝিনাইদহে ছাত্রদলের ঝটিকা বিক্ষোভ মিছিল
  • বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে জবি শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ
  • চির চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বেরোবি শিক্ষার্থী আবু সাঈদ
  • ব্যাংককের একটি হোটেলে মিলল ৬ পর্যটকের মরদেহ
  • 'অস্তিত্বে হামলা এসেছে', ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রতিরোধের নির্দেশ কাদেরের
  • ২ বছর পর এএসপি লিয়াকতের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার
  • ঢাবিও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ, সন্ধ্যার মধ্যে ছাড়তে হবে হল
  • আজ বুধবার, ২ শ্রাবণ, ১৪৩১ | ১৭ জুলাই, ২০২৪
    আন্তর্জাতিক

    সিকিমের ভূমিধসে আটকে পড়েছেন দেড় হাজার পর্যটক

    আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০২:২৩ পিএম
    আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০২:২৩ পিএম

    সিকিমের ভূমিধসে আটকে পড়েছেন দেড় হাজার পর্যটক

    আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০২:২৩ পিএম

    গত কয়েকদিন ধরে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে ভারতের অন্যতম পর্যটন স্পট সিকিমে। টানা বর্ষণে ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে রাজ্যটির উত্তরাঞ্চলের লাচুং ও লাচেনসহ বেশ কয়েকটি শহরে। পাহাড়ি ধসে বন্ধ হয়ে গেছে বহু সড়ক। পানির তোড়ে ভেঙে গেছে বেইলি সেতু। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে রাজ্যের বিভিন্ন শহরে আটকে পড়েছেন অন্তত দেড় হাজার পর্যটক।

    শুক্রবার (১৪ জুন) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

    প্রশাসনের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গনের অম্ভিথাং ও পাকশেপ গ্রামে তিনজন করে মোট ছয়জন মারা গেছেন। প্রচুর বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পাকশেপে একটি ত্রাণশিবির খোলা হয়েছে।

    প্রশাসন বলছে, ত্রাণ ও উদ্ধারকাজ নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তায় পড়েছে তারা। কারণ দুর্গত জায়গাগুলো বন্যা ও ধসের ফলে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় সেখানে কার্যক্রম পরিচালনা করতে অসুবিধা হচ্ছে।

    সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী প্রেমসিং তামাং অবশ্য জানিয়েছেন, সরকার ত্রাণ ও উদ্ধারের কাজ এবং মানুষের কাছে দ্রুত সাহায্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য চেষ্টা করছে।

    এদিকে আগামী আরও দুই দিন সিকিমে প্রবল বৃষ্টি হতে পারে বলে সেখানকার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। গত বুধবার গ্যাংটকে ৬১ ও গেজিংয়ে ৬৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া রাভাংলাতে হয়েছে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ১১৯ মিলিমিটারের বেশি। আর মঙ্গন জেলাতে ২২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

    এসএফ

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…