এইমাত্র
  • এমপি আনার হত্যা: হারুনের নেতৃত্বে কলকাতা যাচ্ছে ডিবির দল
  • সাগরে নিম্নচাপ, বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
  • গরমে পুড়ছে ভারত-পাকিস্তান, সিন্ধুতে তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি
  • নওগাঁয় অভ্যন্তরীন সকল বাস চলাচল বন্ধ
  • ৪১ দশ‌মিক ৭ ডিগ্রী তাপমাত্রায় পুড়ছে চুয়াডাঙ্গা
  • শরীয়তপুরে অস্ত্র ও মাদকসহ গৃহবধূ আটক, স্বামী পলাতক
  • রাতেই আসতে পারে মহাবিপদ সংকেত: দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী
  • এমপি আনারের হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে ঝিনাইদহে অবস্থান কর্মসূচি
  • জামালপুরে ধানক্ষেত থেকে অটোচালকের মরদেহ উদ্ধার
  • বেনাপোল কাস্টমসে ১০ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ৬৭ কোটি ৮৯ লাখ টাকা
  • আজ শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২৫ মে, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন শ্রীঘরে

    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম
    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম

    শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন শ্রীঘরে

    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম

    নওগাঁ সদর উপজেলার কীর্ত্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সিফাত হোসেনকে (১৪) আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জনকে শ্রীঘরে পাঠিয়েছে নওগাঁ জেলা ও দায়েরা জজ আদালত।

    সোমবার (২০ মার্চ) তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে আদালতে প্রেরণ করেন অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইমতিয়াজুল ইসলাম।

    কারাগারে পাঠানো ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন হলেন, কীর্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আজাহারুল ইসলাম (৫৬), সহকারি শিক্ষক মোঃ সাজেদুর রহমান সাজু (৪৩), শ্রী সুবল মন্ডল (৩৯), মোঃ নজরুল ইসলাম (৫১) ও দাসকান্দিগ্রামের মৃত হক সাহেবের ছেলে মিঠু। মামলার এজাহার নামীয় অন্য আসামিরা হলো ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোঃ স্বরন সাহারিয়ার (১৬), শ্রী রিত্তিক (১৬), মোঃ রিয়াদ হোসেন (১৬)।

    মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ৩১ মে সকালে স্কুলের অ্যাসেম্বলিতে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে কীর্ত্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সিফাত হোসেনকে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী স্মরণ শাহরিয়ার, হৃতিক ও রিয়াদ হোসেন মারধর করেন। ঘটনাটি সিফাত তার পরিবারকে জানালে ওই দিনই সিফাতের বাবা মিজানুর রহমান প্রধান শিক্ষক আজহার আলীর কাছে অভিযোগ করেন।

    কিন্তু প্রধান শিক্ষক বিষয়টিতে কর্ণপাত না করে উল্টো সিফাতকেও মারপিট করতে বলেন, নতুবা হাতে মেয়েদের চুরি পরে থাকতে বলেন। এঘটনায় প্রধান শিক্ষকের কাছে অভিযোগ করায় বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থী স্মরণ শাহরিয়ারের বাবা সাজেদুর রহমান শিক্ষার্থী সিফাতকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং বিদ্যালয় হতে টিসি দিয়ে বের করে দেওয়ার হুমকি প্রদান করেন।

    এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সুবল মন্ডল ও নজরুল ইসলামও সিফাতকে নিয়ে হাসাহাসি করেন। ন্যায়বিচার না পাওয়ায় অত্যন্ত মনোকষ্ট নিয়ে বাড়ি ফিরে ওই দিনরাতে গ্যাস বড়ি (কীটনাশক) খায় সিফাত। গুরুতর অবস্থায় প্রথমে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতাল এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

    সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পর দিন (১ জুন) দুপুরে তার মৃত্যু হয়। এঘটনায় নিহত শিক্ষার্থীর বাবা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে নওগাঁ আমলী আদালতে ওই বছরের ৯ জুন মামলা দায়ের করেন।

    এআই

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…