এইমাত্র
  • ঈদুল আজহা সাধারণ মানুষের জন্য অত্যন্ত কষ্টকর দিন হয়ে আসে: মির্জা ফখরুল
  • ভারী বৃষ্টিতে ডুবল সিলেট, ঈদ আনন্দ ম্লান
  • গণভবনে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ
  • জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত, নামাজ পড়লেন রাষ্ট্রপতি
  • ৪০ হাজারের বেশি মুসল্লি নিয়ে আল-আকসায় ঈদের জামাত
  • ২২০০ পশুর গোশতো বিতরণ হবে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে
  • ঈদের দিন রাজধানীসহ দেশের যেসব অঞ্চলে বৃষ্টির সম্ভাবনা
  • বায়তুল মুকাররমে ঈদুল আজহার ৫ জামাতের সময়সূচি
  • দেশবাসীর উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও বার্তায় যা বললেন
  • আজ সোমবার, ৩ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৭ জুন, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    ফরিদপুরে বৃষ্টিতে রবি শস্যের ব্যাপক ক্ষতি

    নাজমুল হাসান নিরব, ফরিদপুর প্রতিনিধি প্রকাশ: ৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০০ এএম
    নাজমুল হাসান নিরব, ফরিদপুর প্রতিনিধি প্রকাশ: ৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০০ এএম

    ফরিদপুরে বৃষ্টিতে রবি শস্যের ব্যাপক ক্ষতি

    নাজমুল হাসান নিরব, ফরিদপুর প্রতিনিধি প্রকাশ: ৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০০ এএম

    ফরিদপুরের সদরপুরে বৃষ্টিতে রবি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। চলতি রবি মৌসুমে বেশিরভাগ কৃষক মাঠে পেঁয়াজ, রসুন, গম, সরিষা ধনিয়া, মসুরি, কলাই, কালোজিরা সহ ইরিধানের বীজতলায় বীজ বপন করে ফেলেছেন। মৌসুমের শুরুতে এমন অকাল বৃষ্টি তাদেরকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন তারা।

    শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার একাধিক কৃষকের সাথে কথা বলে জানা যায়, বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ,তবে বৃষ্টি আরো বাড়লে একেবারে সর্বনাশ হয়ে যাবে। মৌসুমের শুরুতে অকাল বৃষ্টি উৎপাদনে ব্যাপক ঘাটতি ঘটাবে।

    জানা যায়, বুুধবার (৭ ডিসেম্বর) গভীর রাত থেকে মুষল ধারার টানা বৃষ্টিতে রবি শস্যের জন্য প্রস্তুতকৃত নীচু জমি ও বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে বৃষ্টি একটু কম থাকায় কেউ কেউ পাম্প লাগিয়ে পানি নিষ্কাশন শুরু করেছিলেন, কিন্তু পরিস্থিতি অনুকুলে না থাকায় সেচ বন্ধ করে দিয়েছেন।

    উপজেলার ভাষানচর, চরবিষ্ণুপুর এলাকায় দানা পেঁয়াজ ও মুড়িকাটা পেঁয়াজের ব্যাপক চাষ হয়। এই এলাকার জাহাঙ্গীর মৃধা জানান, ৫ বিঘা দানা ও মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাষ করেছি। টানা ২ দিন বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে সবটা নষ্ট হয়ে যাবে। কিছুই অবশিষ্ট থাকবে না।

    আমিরাবাদের কৃষক আক্কাছ হোসেন জানিয়েছেন, তিনি কলাই, ধনিয়া আর গম বুনেছেন। টানা বৃষ্টিতে আংশিক অথবা সম্পূর্ণ ক্ষতির আশংকা করছেন তিনি।

    রামচন্দ্রপুর এলাকায় বেশ কিছু ধানের বীজতলা পানিতে ডুবে গেছে। পাম্প লাগিয়ে পানি নিষ্কাশনের চেষ্টা করেছেন কেউ কেউ। কিন্তু অব্যাহত বৃষ্টিতে তা বন্ধ রাখতে হয়েছে।

    উপজেলা সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ইসমাইল শরীফ জানিয়েছেন, এই মূহুর্তে রবিশস্যের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করা সম্ভব নয়। বৃষ্টি একেবারে শেষ না হলে বৃষ্টিতে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা নির্নয় করা যাচ্ছে না।

    পিএম

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…