এইমাত্র
  • পণ্য মজুতকারীদের গণধোলাই দেয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী
  • মাদারীপুরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৪
  • চিনির দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরে এলো সরকার
  • বসন্ত বিকেলে স্বস্তির বৃষ্টিতে ভিজল ঢাকা
  • বিদেশি ঋণের চাপ আছে, তবে বেশি না: অর্থমন্ত্রী
  • রিয়া মণিকে নিয়ে প্রশ্ন করায় ক্ষেপলেন হিরো আলম
  • রোজার আগেই চিনির দাম বাড়লো কেজিতে ২০ টাকা
  • ‘বিএনপির আটক কর্মীদের মুক্তির সঙ্গে নির্বাচনের সম্পর্ক নেই’
  • বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই মাতৃভাষা ও স্বাধীনতা পেয়েছি: শেখ হাসিনা
  • সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ চৌধুরীর জামিন, মুক্তিতে বাধা নেই
  • আজ শুক্রবার, ১০ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
    আইন-আদালত

    লাশ চিতায় না, কবরস্থানে! আদালতের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা

    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:০৭ এএম
    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:০৭ এএম

    লাশ চিতায় না, কবরস্থানে! আদালতের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা

    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:০৭ এএম

    চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম পটিয়া উপজেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়া ২৮ বছর বয়সি যুবকের লাশ মুসলিম কিংবা হিন্দু এই পরিচয়ের বেড়াজালে দীর্ঘ ১০ ঘন্টা ধরে লাশ পড়ে আছে পটিয়া হাইওয়ে থানায় লাশবাহী ফ্রিজিং এ্যাম্বুলেন্স।

    নিহত যুবকের পরিবারের দাবি, সে হিন্দু ছিল। এখনো হিন্দু আছে। তাই হিন্দু ধর্মের নিয়মে মেনে শেষকৃত্য চিতায় সম্পন্ন করবেন। কিন্তু তার সহপাঠি ও স্বজনদের দাবি, সে ২০২০ সালের ১৭ নভেম্বর নগরীর লালখান বাজার এলাকার একটি মাদ্রাসায় মৌলনা হারুন এজাহারের কাছে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

    এরপর থেকে সে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ত ও মুসলিম ধর্মের সব নিয়ম কানুন মেনে চলতেন। তাই তারা মুসলিম হিসেবে তার লাশ দাফন করতে আগ্রহী।

    সহপাঠিরা এটাও জানান, নিহত যুবক তার মাকে নিয়ে নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। বাসুস কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

    এখানেই বাধে বিপত্তি। আদালতের রায়ের অপেক্ষায় এখন নিহত যুবকের পরিবার ও সহপাঠিরা। এরপর জানা যাবে, লাশ কবরস্থানের যাবে, না চিতায় পুড়ানো হবে।

    হলফনামা সুত্রে জানা যায়, তার নাম রতন দাশ (২৮)। বাড়ি মিরসরাই উপজেলার পূর্ব মায়ানী গ্রামে। তার পিতার নাম মনো দাশ ও মাতার নাম সন্ধ্যা দাশ।

    বিষয়টি নিশ্চিত করে এডভোকেট সাইফুল ইসলাম বলেন, নিহত যুবক দুই বছর আগে মুসলিম হিসেবে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার জন্য জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে নাম পরিবর্তন করে আহমাদ হয়েছেন। যার নোটারী নম্বর-১১০৫৪৪। মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করার ছবিও রয়েছে। এখন শুনেছি সে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।

    অন্যদিকে, নিহত যুবকের সহপাঠী মো. রুবেল দাশ গুপ্ত বলেন, সে ইসলাম ধর্ম মেনে মুসলিম হয়েছে। যা আমাকে জানিয়েছিলো। এবং বলে গেছেন। যদি কখনো তার মৃত্যু হয়। তাহলে মুসলিম হিসেবে কবরস্থানে দাফন করতে।

    নিহতের খালাতো বোন ভিফা দাশ বলেন, সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। যা আমরা কেউ জানি না। আর ও যদি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতো, তাহলে সে তার মায়ের কাছে কেন ছিল?

    তিনি আরো বলেন, সে সব সময় আমাদের পূজা মণ্ডপ তুলে ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা মেনে চলতো। আর যখন লাশ নিতে আসছি কিছু লোকজন বলতেছে। সে নাকি মুসলিম হয়েছে। ওর লাশ নিতে দিবে না।

    কর্ণফুলী থানা গাউসিয়া কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইমতিয়াজ বলেন, বিষয়টি আমরা শুনেছি। লাশটি মুসলিম হিসেবে দাফন করার জন্য আমরা পদক্ষেপ নিচ্ছি।

    দক্ষিণ জেলা গাউছিয়া কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব খান বলেন, ছেলেটি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে। সেটা সত্যি কিন্তু ওদের পরিবার সেটা মানতে চাচ্ছে না। আমরা প্রমাণ করে ছাড়ব (ইনশাআল্লাহ)।

    কর্ণফুলীর ডাকপাড়া জমিয়াতুল মামুর জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা আতাউর রহমান বলেন, সে যদি মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করে থাকে, তাহলে তাকে ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী জানাজা সম্পন্ন করে দাফন করতে হবে।

    পটিয়া হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিকাশ সরকার বলেন, লাশটি এখন পযর্ন্ত হাইওয়ে থানার দায়িত্ব রয়েছে। এই বিষয়ে আদালত সিদ্ধান্ত নিবে।

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…