এইমাত্র
  • ঈদুল আজহাতেই রিজার্ভ বাড়ল ৩১ কোটি ৮৩ লাখ ডলার
  • অস্ট্রেলিয়াকে ১৪১ রানের টার্গেট দিল টাইগাররা
  • হজের প্রথম ফিরতি ফ্লাইটে দেশে ফিরলেন ৪১৭ হাজি
  • টসে হেরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
  • দুপুরে ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
  • ঈদে ৭ খামার থেকে ৭০ লাখ টাকার গরু কেনেন সেই ইফাত
  • এরপর গুলি করলে আমরাও পাল্টা গুলি করব: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • সুনামগঞ্জ পুলিশের উদ্যোগে বন্যার্তদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
  • শ্রমিক-মালিক স্বার্থ রক্ষায় শ্রম আইন হালনাগাদ হচ্ছে: শ্রম প্রতিমন্ত্রী
  • সৌদিতে মৃত হজযাত্রীর সংখ্যা ৯০০ ছাড়িয়েছে, নিখোঁজ অনেকে
  • আজ শুক্রবার, ৭ আষাঢ়, ১৪৩১ | ২১ জুন, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন শ্রীঘরে

    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম
    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম

    শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন শ্রীঘরে

    আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০২৩, ১১:৫৬ এএম

    নওগাঁ সদর উপজেলার কীর্ত্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সিফাত হোসেনকে (১৪) আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জনকে শ্রীঘরে পাঠিয়েছে নওগাঁ জেলা ও দায়েরা জজ আদালত।

    সোমবার (২০ মার্চ) তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে আদালতে প্রেরণ করেন অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইমতিয়াজুল ইসলাম।

    কারাগারে পাঠানো ৪ শিক্ষকসহ ৫ জন হলেন, কীর্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আজাহারুল ইসলাম (৫৬), সহকারি শিক্ষক মোঃ সাজেদুর রহমান সাজু (৪৩), শ্রী সুবল মন্ডল (৩৯), মোঃ নজরুল ইসলাম (৫১) ও দাসকান্দিগ্রামের মৃত হক সাহেবের ছেলে মিঠু। মামলার এজাহার নামীয় অন্য আসামিরা হলো ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোঃ স্বরন সাহারিয়ার (১৬), শ্রী রিত্তিক (১৬), মোঃ রিয়াদ হোসেন (১৬)।

    মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ৩১ মে সকালে স্কুলের অ্যাসেম্বলিতে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে কীর্ত্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সিফাত হোসেনকে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী স্মরণ শাহরিয়ার, হৃতিক ও রিয়াদ হোসেন মারধর করেন। ঘটনাটি সিফাত তার পরিবারকে জানালে ওই দিনই সিফাতের বাবা মিজানুর রহমান প্রধান শিক্ষক আজহার আলীর কাছে অভিযোগ করেন।

    কিন্তু প্রধান শিক্ষক বিষয়টিতে কর্ণপাত না করে উল্টো সিফাতকেও মারপিট করতে বলেন, নতুবা হাতে মেয়েদের চুরি পরে থাকতে বলেন। এঘটনায় প্রধান শিক্ষকের কাছে অভিযোগ করায় বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থী স্মরণ শাহরিয়ারের বাবা সাজেদুর রহমান শিক্ষার্থী সিফাতকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং বিদ্যালয় হতে টিসি দিয়ে বের করে দেওয়ার হুমকি প্রদান করেন।

    এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সুবল মন্ডল ও নজরুল ইসলামও সিফাতকে নিয়ে হাসাহাসি করেন। ন্যায়বিচার না পাওয়ায় অত্যন্ত মনোকষ্ট নিয়ে বাড়ি ফিরে ওই দিনরাতে গ্যাস বড়ি (কীটনাশক) খায় সিফাত। গুরুতর অবস্থায় প্রথমে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতাল এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

    সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পর দিন (১ জুন) দুপুরে তার মৃত্যু হয়। এঘটনায় নিহত শিক্ষার্থীর বাবা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে নওগাঁ আমলী আদালতে ওই বছরের ৯ জুন মামলা দায়ের করেন।

    এআই

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    চলতি সপ্তাহে সর্বাধিক পঠিত

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…