এইমাত্র
  • যাত্রাবাড়ীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে সাংবাদিক হাসান মেহেদি নিহত
  • ইন্টারনেট বন্ধ করায় গ্রামীণফোনের হেডঅফিস ঘেরাও
  • অস্ত্র জমা দিয়েছি কিন্তু ট্রেনিং জমা দিইনি: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী
  • দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বিটিভির আগুন, যেতে পারছে না ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি
  • টাঙ্গাইলে পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ
  • কিশোরগঞ্জে আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, আহত অর্ধশতাধিক
  • পঞ্চগড়ে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল-সড়ক অবরোধ
  • কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষ, আহত শতাধিক
  • জামালপুরে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, আহত ১২, আটক ৪
  • কটিয়াদীতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে হামলায় আহত অর্ধশত
  • আজ মঙ্গলবার, ৮ শ্রাবণ, ১৪৩১ | ২৩ জুলাই, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    কটিয়াদী শহরের প্রবেশমুখে ময়লার ভাগাড়, মানুষের দুর্ভোগ

    ছাইদুর রহমান নাঈম, কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি প্রকাশ: ৩১ মে ২০২৩, ০৫:২৩ পিএম
    ছাইদুর রহমান নাঈম, কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি প্রকাশ: ৩১ মে ২০২৩, ০৫:২৩ পিএম

    কটিয়াদী শহরের প্রবেশমুখে ময়লার ভাগাড়, মানুষের দুর্ভোগ

    ছাইদুর রহমান নাঈম, কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি প্রকাশ: ৩১ মে ২০২৩, ০৫:২৩ পিএম

    কটিয়াদী সদরে প্রবেশ মুখ কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী বাসট্যান্ড এলাকা। আর এখানেই সড়কের পাশে ফেলা হয় ময়লা৷ দীর্ঘদিন ধরে এমন অবস্থা চলে আসলেও নজর নেই কারও। এতে পরিবেশ ও মানুষের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে৷ ফলে বাহিরের কেউ ময়লার দুর্গন্ধ নিয়েই প্রবেশ করতে হচ্ছে।

    শুধু এখানেই নয়, বাজারের পাট পট্টি সড়কের একটি স্থানে আবর্জনার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। পুরাতন বাজারসহ বেশকিছু খোলা স্থানে ফেলা ময়লায় মানুষের অবস্থা এমন যে, বুক ফাটে তো মুখ ফাটেনা। ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চিলিক সড়কের পাশে ময়লা আবর্জনা ফেলছে খোদ পৌরসভা। এতে জন্ম নিচ্ছে মশা-মাছি ছড়াচ্ছে বিভিন্ন প্রকার রোগ জীবাণু।

    সরেজমিনে দেখা যায়, কটিয়াদী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রয়েছে কয়েক শত দোকান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বসতবাড়ি। তাছাড়া এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করে হাজার হাজার মানুষ। জনবসতি ও গুরুত্বপূর্ন সড়কের সাথে ময়লা আর্বজনা ফেলে স্তপ করে রাখছে পৌরসভার পরিচ্ছনতাকর্মীরা। বাজারের সড়কগুলোতেও স্তুপ করে রাখা হয়েছে ময়লা।

    এ সময় কটিয়াদী বাসস্ট্যান্ড এলাকা দিয়ে চলাচলরত পথচারী মতিন আলম বলেন, দিনের পর দিন এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের উপর ময়লা ফেলছে পৌরসভার কর্মীরা। মাস্ক পরে থেকেও নাক চেপে না ধরে চলার উপায় নেই।

    এদিকে এই সমস্যা নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে কটিয়াদীর পাট ব্যবসায়ীরা এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। তারা এর প্রতিকার চায়।

    পাট ব্যাবসায়ী সুজিত কুমার সাহা বলেন, এই সমস্যা সমাধান না হলে আমাদের ব্যবসা হুমকির মুখে পড়বে। পৌরসভার মধ্যে এমন অবস্থা এটা দুঃখজনক। আমরা প্রতিকার চাই৷

    বাসট্যান্ড এলাকার ব্যবসায়ী এখলাছ উদ্দিন বলেন, শুধু আসা যাওয়ায় ভোগান্তি নয়, এই ময়লা থেকে জন্ম নিচ্ছে মশা-মাছি, ছড়াচ্ছে দুগর্ন্ধ। রাতের বেলায় দুগর্ন্ধে ঘুমানোও যায় না। খাওয়া-দাওয়া করতেও কষ্ট হচ্ছে। ব্যবসা পরিচালনা করাই কঠিন হয়ে পড়ছে।

    স্বাস্থ্য সমস্যার বিষয়ে জানতে চাইলে ডাঃ শামিম ভুঁইয়া বলেন, ময়লা থেকে পরিবেশ দুষণ হবে৷ এলার্জি, চর্ম রোগসহ হাঁচি কাশি সমস্যা হতে পারে। এছাড়াও পেটের সমস্যা ও ডায়রিয়া আক্রান্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

    কটিয়াদী পৌরসভার মেয়র মোঃ শওকত উসমান বলেন, প্রতিদিন পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা শহরের বিভিন্ন এলাকা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করছে। আর ময়লা ফেলার বিষয়টি হলো, আপাতত পৌরসভার ময়লা ফেলার কোন জায়গা নেই, জায়গা নেওয়ার মতো অর্থও নেই। পৌরসভার ময়লা ডাম্পিং করা গেলে এই সমস্যা থাকবেনা৷

    কটিয়াদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও খানজাদা শাহরিয়ার বিন মান্নান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, উক্ত সমস্যা নিয়ে ব্যবসায়ীরা লিখিত আবেদন করেছেন। একবার পরিস্কার করে দেওয়া হয়েছিল। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে৷

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…