এইমাত্র
  • যশোরে হিটস্ট্রোকে মারা যাচ্ছে খামারের মুরগি
  • ইঁদুর দেখতে গিয়ে সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু
  • ২১ নাবিক দেশে ফিরবেন এমভি আব্দুল্লাহতেই, বাকি দুজন বিমানে
  • রাজধানীতে যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত
  • কিশোরগঞ্জে ৫ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে ১ ব্যক্তির মৃত্যু
  • লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে ইউপি সদস্য আহত
  • হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করায় দুই যুবককে ৬ মাসের কারাদণ্ড
  • বিএনপি সাম্প্রদায়িক অপশক্তি, এদের প্রতিহত করতে হবে: কাদের
  • মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
  • লক্ষ্মীপুরে আধিপত্য নিয়ে হামলায় আহত ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু
  • আজ বুধবার, ৪ বৈশাখ, ১৪৩১ | ১৭ এপ্রিল, ২০২৪
    শিক্ষাঙ্গন

    জাবিতে আসনপ্রতি কমেছে ভর্তিযুদ্ধের লড়াই

    রুহুল ইসলাম, জাবি করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৯:০৬ পিএম
    রুহুল ইসলাম, জাবি করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৯:০৬ পিএম

    জাবিতে আসনপ্রতি কমেছে ভর্তিযুদ্ধের লড়াই

    রুহুল ইসলাম, জাবি করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৯:০৬ পিএম

    জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আজ বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হয়েছে। পরীক্ষা চলবে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। গত বছরের তুলনায় এবার ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২১ শতাংশ কমেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

    প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এ বছর ভর্তি পরীক্ষায় ছয়টি ইউনিট ও একটি ইনস্টিটিউটে আসন রয়েছে এক হাজার ৮৪৪টি। গত বছর একই সংখ্যক আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছিল দুই লাখ ৪৯ হাজার ৮৫৭টি। তবে এবার জমা পড়েছে এক লাখ ৯৭ হাজার ৮৫১টি। আগের বছর আসন প্রতি প্রতিযোগী ছিল ১৩৪ জন। এবার কমে হয়েছে ১০৮ জনে। সে হিসেবে গত বছরের তুলনায় পরীক্ষার্থী কমেছে প্রায় ২১ শতাংশ।

    সংশ্লিষ্টরা জানান, এবারের ভর্তি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা তুলনামূলক কম। কারণ ইউনিটের সংখ্যা কমানো এবং ভর্তি পরীক্ষার আবেদনে বিষয়ভিত্তিক বাংলা ও ইংরেজিতে সর্বনিম্ন ‘এ-’ (‘এ’ মাইনাস) থেকে ‘এ’ গ্রেড করার কারণে আবেদনের সংখ্যা কমেছে।

    বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) মো. আলী রেজা বলেন, আগের বছরগুলোয় ইউনিটের সংখ্যা বেশি ছিল। ভর্তি পরীক্ষা গত ৩ বছরে ১০ ইউনিট থেকে ৫ ইউনিটে পরিবর্তন করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই ইউনিটের সংখ্যা কমানোর ফলে একজন ভর্তিচ্ছুর একাধিক আবেদন করার সুযোগ কমেছে।

    সেক্ষেত্রে আবেদনকারীর সংখ্যা কিছু কমে গেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ বছর ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের যোগ্যতা বাড়ানোর ফলে ভর্তিচ্ছু কমেছে।

    এ বিষয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নীলাঞ্জন কুমার সাহা বলেন, সমাজবিজ্ঞান অনুষদ এবং ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের আবেদনের মানদণ্ডের কিছুটা পরিবর্তন হয়েছে। সে কারণে আবেদন কম পড়েছে। আমরা চাই একটি নির্দিষ্ট মানদণ্ডের ওপর ভিত্তি করে শিক্ষার্থীদের ভর্তি করাতে।

    এদিকে বেলা ১১টার দিকে সমাজবিজ্ঞান অনুষদ পরিদর্শনকালে উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম বলেন, সুষ্ঠু স্বাভাবিকভাবে পরীক্ষা হচ্ছে। এখনও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। প্রথম দুই শিফটে উপস্থিতির হার ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ। আমরা আশা করছি, ভর্তি পরীক্ষার পুরো সময়টা শৃঙ্খলাবদ্ধ থাকবে। সার্বিক শৃঙ্খলা রক্ষায় আমাদের টিম তৎপর রয়েছে।

    এমআর

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…