এইমাত্র
  • ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র-ইইউ
  • যশোরে হিটস্ট্রোকে মারা যাচ্ছে খামারের মুরগি
  • ইঁদুর দেখতে গিয়ে সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু
  • ২১ নাবিক দেশে ফিরবেন এমভি আব্দুল্লাহতেই, বাকি দুজন বিমানে
  • রাজধানীতে যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত
  • কিশোরগঞ্জে ৫ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে ১ ব্যক্তির মৃত্যু
  • লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে ইউপি সদস্য আহত
  • হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করায় দুই যুবককে ৬ মাসের কারাদণ্ড
  • বিএনপি সাম্প্রদায়িক অপশক্তি, এদের প্রতিহত করতে হবে: কাদের
  • মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
  • আজ বুধবার, ৪ বৈশাখ, ১৪৩১ | ১৭ এপ্রিল, ২০২৪
    আন্তর্জাতিক

    বাসা ভাড়া বাঁচাতে বিমানে যাতায়াত বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের

    সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৫:৫৪ পিএম
    সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৫:৫৪ পিএম

    বাসা ভাড়া বাঁচাতে বিমানে যাতায়াত বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের

    সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৫:৫৪ পিএম

    ভালো স্কুল-কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য বেশিরভাগ মানুষকেই বাড়ি ছাড়তে হয়। স্কুল-কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের আশপাশে বাসা ভাড়া নিয়ে বা হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করতে হয়। আবার অনেকে দূরত্ব বেশি না হলে গণপরিবহণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করেন। তাই বলে কেউ বিমানে করে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা–যাওয়া করেন, এমন ঘটনা বিরল।

    এমনই কাণ্ড ঘটিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন টিম চেন নামে ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার (ইউবিসি) এক শিক্ষার্থী। তিনি বাসা ভাড়া বাঁচাতে সপ্তাহে দুই দিন বিমানে চড়ে ক্লাস করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে যান। খবর এনডিটিভির।

    টিম চেন ক্যালগেরির বাসিন্দা। ভ্যাংকুভারে এক কক্ষের বাসা ভাড়া নিয়ে থাকার চেয়ে বিমানে করে আসা–যাওয়ায় তার খরচ কম হয়। তিনি প্রতি সপ্তাহে মাত্র দুটি ক্লাশ করেন। এতে প্রতিবার ওই শিক্ষার্থীর আসা–যাওয়ার ভাড়া পড়ে ১৫০ মার্কিন ডলার। মাসে এক হাজার ২০০ ডলারের (১ লাখ ৪২ হাজার টাকা প্রায়) মতো। কিন্তু ভ্যাংকুভারে এক কক্ষবিশিষ্ট অ্যাপার্টমেন্টের মাসিক ভাড়া দুই হাজার ১০০ ডলার (প্রায় ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা)।

    রেডিটে চেন নিজের অভিজ্ঞতা লিখে শেয়ার করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমি অনেক দূর থেকে ইউবিসির নিয়মিত যাত্রী এবং আমি ক্যালগেরিতে থাকি। মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার আমার ক্লাস থাকে, তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে হয়। আমি সকালে ভ্যানকুভারে উড়ে যাই এবং রাতে ক্যালগেরিতে ফিরে আসি। আমি এয়ার কানাডায় ফ্লাইটে যাতায়াত করি।’

    চেন লিখেছেন, ‘জানুয়ারিতে আমি এ রকম সাতবার আসা–যাওয়া করেছি। দেখলাম, এতে আমার ডলার অনেক বেঁচে যায়। কারণ আমাকে ক্যালগেরিতে ভাড়া দিতে হবে না (আমার মা–বাবার সঙ্গে বাড়িতে থাকার কারণে)। ভ্যাংকুভারে এক শয্যাবিশিষ্ট কক্ষের দুই হাজার ডলার ভাড়ার চেয়ে এটি সস্তা।’

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…