এইমাত্র
  • যারা ভাবছেন আন্দোলনটা শুধুই চাকরির জন্য, তারা বোকা: ফারুকী
  • কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি ঠিক করে দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • স্ত্রী-সন্তানের সামনেই লংকান ক্রিকেটারকে গুলি করে হত্যা
  • সন্ধ্যার পর ঢাবি প্রশাসন যে নির্দেশনা দেবে তাই করব: র‍্যাব
  • 'ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে'
  • জবিতে হল প্রভোস্টকে অবরুদ্ধ, বঙ্গমাতা হল খোলা রাখার ঘোষণা
  • বিএনপির গায়েবানা জানাজা কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা
  • শাবিপ্রবিতে আজীবন নিষিদ্ধ জাফর ইকবাল
  • সহিংসতা থামাতে মুশফিক-তামিমদের আকুতি
  • থানা থেকে দুই শিক্ষার্থীকে ছাড়িয়ে আনলেন ঢাবি শিক্ষকরা
  • আজ বুধবার, ২ শ্রাবণ, ১৪৩১ | ১৭ জুলাই, ২০২৪
    আপনার স্বাস্থ্য

    অতিরিক্ত মাংস খাচ্ছেন, হতে পারে বিপদ!

    স্বাস্থ্য ডেস্ক প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৭:০৪ এএম
    স্বাস্থ্য ডেস্ক প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৭:০৪ এএম

    অতিরিক্ত মাংস খাচ্ছেন, হতে পারে বিপদ!

    স্বাস্থ্য ডেস্ক প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৭:০৪ এএম

    কোরবানির ঈদে কম-বেশি সবাই গরুর মাংস খেয়ে থাকেন। আর ভোজনরসিকদের মাংস খাওয়ার মাত্রা বেশি হয়ে যায়। গরুর মাংসের অনেক উপকারিতা থাকলেও এটি খেতে হবে পরিমিত। অতিরিক্ত মাংস খেলে দেখা দিতে পারে নানা স্বাস্থ্যঝুঁকি। উচ্চমানের প্রোটিন সমৃদ্ধ একটি খাবার গরুর মাংস।

    একজন সুস্থ মানুষ প্রতিদিন কতটুকু গরুর মাংস খেতে পারবেন, তা নির্ভর করে ওই ব্যক্তির ওজনের ওপর। ধরুন একজন ব্যক্তির দৈনিক ওজন ৭০ কেজি। তাহলে তিনি প্রতিদিন ৭০ গ্রাম প্রোটিন গ্রহণ করতে পারবেন। প্রতিদিন টানা ১০০ গ্রামের বেশি লাল মাংস খেলে হৃদরোগে মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ে ১৫ শতাংশ। এছাড়া ব্রেইন স্ট্রোকের ঝুঁকি ১১ শতাংশ, বৃহদান্ত্র ও প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি ১৭ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

    অতিরিক্ত মাংস কোষ্ঠকাঠিন্য ও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কারণ হয়। মাংসে থাকা বিশেষ ইনফ্লামেটরি যৌগ পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত্র ও বৃহদন্ত্র ক্যান্সারের জন্যও দায়ী। অতিরিক্ত মাংস খেলে ফুসফুস নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। এটি কোলন ও স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। অতিরিক্ত লাল মাংস আর্থ্রাইটিস, গাউট, পেপটিক আলসার, পিত্তথলিতে পাথর, প্যানক্রিয়াস প্রদাহ ও কিডনি রোগসহ বিভিন্ন জটিলতা তৈরি হয়। টাটকা লাল মাংসের চেয়ে প্রক্রিয়াজাতকৃত লাল মাংস আরও বেশি ক্ষতিকর।

    দৈনিক ৫০ গ্রামের বেশি প্রক্রিয়াজাতকৃত মাংস খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি ৪২ শতাংশ ও ক্যান্সারের ঝুঁকি ৬৩ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। সুস্থ থাকার অন্যতম শর্ত হচ্ছে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে সুষম খাবার খাওয়া। ঈদে তো গরু বা খাসির মাংস খাওয়া হবেই। তবে অতিরিক্ত খেয়ে শারীরিক জটিলতা সৃষ্টি করবেন না। ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি জটিলতাসহ অন্য রোগ থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে মাংস খেতে হবে।

    এমআর

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…